আমার চুল ও নরসুন্দর প্যাচাল


আমার চুল ও নরসুন্দর প্যাচাল


গাজী ওয়াজদে আলম লাবু : কশৈোরে মাথায় কানবাবড়ি চুল থাকায় সে চুলগুলো তাদরে সীমানা প্রাচীর ডঙ্গিয়িে কানকে ঢকেে দতি।বয়স কম থাকায় শক্তরি দুরন্তপনায় এক-আধটু অনয়িম করলওে মাথার প্রতবিশেী কান তা নয়িে উচ্চবাচ্য করতে সাহসী হত না। আমাদরে প্রতবিশেীর বাড়তিে ফলদ গাছরে ডালপালা গলেে তারা কোন প্রতবিাদ না করলওে কাঠ গাছরে ডাল সীমানা পরেুলে চত্রৈ মাসওে বাড়তিে রোদ না প্রবশেরে অজুহাত দখোত। কন্তিু চুলতো আর ফলদ না যে সহ্য করা হবে এই বাড়তি বয়সওে।তাই চুল তার সীমানা অতক্রিম করলইে সহ্যরে সীমা ছাড়য়িে যায়।বাধ্য হয়ে সলেুনরে দ্বারস্থ হতে হলো সন্ধ্যায়।
ছোট বলো থকেইে সলেুন ভীতি ছলি আমার। আমাদরে গ্রামরে বাজারে নাককাটা এক নরসুন্দর বসতো উদোম গায়ে লম্বা দুই হাঁটু বরে করে জলচকতিে বসতো।আমি সখোনে গলেইে দখেতাম চামরার বল্টেে খুর ঘষে ধারালো করার দৃশ্য।মাথাটি তার হাঁটুর নয়িন্ত্রণে নয়িে যাচ্ছতোই অত্যাচার করতো।অন্য কোথাও যাওয়ার উপায় ছলিনা,কারন এই নরসুন্দর আমাদরে মাথার অত্যাচার করইে জমরি ফসল ভোগ করতো।ঐ জমটিি তাদরে দখলে না থাকলওে নাপতিরে ক্ষতে হসিবেইে বশে পরচিতি এখনো।তাই সলেুনে আসার পর এখনো বশেী কথা বলনিা। সলেুনে ঢুকে কোথায় বসবো বলার পর দখেয়িে দয়ো আসনে বসে পরলাম। সলেুনরে নরসুন্দর মোবাইল নয়িে মহাব্যস্ত।একটি মোবাইল থকেে জ্যাক লাগয়িে হন্দিি গান বাজাচ্ছে লাউড স্পকিার।ে সনিমো-গান তাদরে বশে প্রয়ি তা আগে থকেইে জানতাম। নায়কিারা চুল ছাটতে না এলওে তাদরে নানা ভঙ্গমিার পোষ্টার লাগানো থাকতো সলেুন।ে চয়োররে পছিনওে থাকতো এসব পোষ্টার। কখনো এসব পোষ্টার দাড়য়িে দখোর সাহস না পলেওে সলেুনরে চয়োরে বসে সামনরে আয়নায় আয়সে করইে দখেে নতিাম নর্ভিয়।ে এখানে তমেনটি নইে,তাই হয়তো গান দয়িইে সন্তুষ্ট করছে কানরে র্পদাক।ে এসব ভাবতে ভাবতে বশে সময় পরেয়িে গলেওে আমার প্রতি কোন ভ্রুক্ষপে নইে তার ।তাই বাধ্য হয়ইে পরে আসতে হবে কনিা বলতইে আর একটু অপক্ষো করার সান্তনা পলোম। এই আসনরে নরসুন্দর আসলনে ২০/২৫ মনিটি পর।তার সরিয়িাল থাকায় অন্যকে আমার মাথায় হাত দতিে দবিনে না বশে বুঝতে পরেে স্বস্থ’ি পলোম। তনিি এসইে সাদা ধবধবে কাফনরে কাপড় গায়ে মুড়য়িে দলিনে কছিু বলার আগইে। ড্রয়ার থকেে সান দয়ো কচেি বরে করে ঘচোং-ঘচোং শব্দ করে চালয়িে দলিনে অবাধ্য চুল গুলোর পটেরে মধ্য দয়ি।েকোন রকমে কান বরে করে চুল খুব ছোট না করার অনুরোধ করলাম তাক।েচলতে থাকলো চরিুনী অভযিান আর কাচরি যুদ্ধ। মনে হলো আদররে মাথাটি আর আমার রইল না।সঁপে দয়ো মাথাটরি কছিু অংশ কাটা শষেে পাশে থাকা তারই সহর্কমীর কাছে ৩ শত টাকা ধার চাইলো এই নরসুন্দর।ধার না পাওয়ায় ক্ষুদ্ধ নরসুন্দর আমার মাথার ওপর তার অত্যাচাররে মাত্রা যনে আরও বাড়য়িে দলি। চরিুনীর প্রতটিি দাঁত মনে হলো কুমরিরে দাঁতরে মত মাথায় আচর দতিে থাকলো। এ আচরওে সন্তুষ্ট না হয়ে বারবার তারই কাচি দয়িে রাগ কমাতে সে চরিুনীতে আঘাত করতে থাকলো।ভাগ্যভাল যাক মাথা দয়িছেি গলাতো দইেন।িগলা বাঁচানোর জন্য কোন দনি সলেুনে সভে হইন।ি অনকেকইে দখেছেি চয়োরে হলোন দয়িে নর্বিঘ্নিে গলাটি সপে দয়িছেনে নরসুন্দররে ধারালো অস্ত্ররে কাছ।ে আবার অনকেকইে দখেছেি চোখ বন্ধ করে ভয় কমাত।েশুভ্র ফনোয় গলা ঢকেে দয়িে নরম করে অস্ত্র চালানো হয় অনায়াস।ে
আমি তা পারনি।িতাই আমার মাথা কাটার সময় সে ভাবছে এই শালাদরে মাথায় চুল না থাকলে আমার নরসুন্দর হতে হতো না।টাক পড়,সব শালার মাথার্ভতি টাক পড়।অত্যাচাররে মাত্রা সহ্য করতে না পরেে মাথার আদুরে চুলগুলো আমারই পায়রে নচিে পড়তে থাকলো। কচ্ছিুটি বলার উপায় নইে, মাথাতো সপে দয়িছেইি তাক,েমাথা বক্রিী যাকে বল।ে চুলরে পটে বরাবার কচেি চালানোয় চুলরে কালো অংশ মাটতিে গড়াগড়ি খলেওে সাদা অংশ খাঁড়া হয়ে মাথায় বসে থাকলো।আহ্বান আসলো চুলে কলপ দবোর,ভালমানরে কলপ,কাপড়ে লাগনো,অনকেদনি টকেসই,কোন র্পাশ¦প্রতক্রিয়িা নইে। সইে সাথে বাসায় লাগানো কলপরে নানা সমস্যার কথা একদমে বরে হয়ে আসলো তার পটে থকে।ে নানা প্রলোভনওে পকটেরে কথা মনে পড়তইে চুপসে যাওয়া মলনি বদনে না-না তার দরকার নইে,বাসায় লম্বা টউিব পড়ে রয়ছেে বলইে মুখ বন্ধ করলাম। ততক্ষণে ক্ষুর নমেে এসছেে চপিরে কাছ,েমানে গলার একটু ওপরইে।প্রযুক্তকিে ধন্যবাদ এখন ক্ষুরে ব্লডে লাগানো হয়,আগকোর মতো চাপাতরি ন্যায় ছোট্ট ক্ষুর দয়িে জম্মিি করা হয় না।তার পর আবার মাঝে মধ্যইে চামড়ার বল্টেে ঘষঘেষে ধার করা হতো চোখরে সামনে এনইে, কি সব ভঙ্কর কান্ড! তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আমার প্রতি সুবচিার প্রসন্ন হলো না। অগ্রজকে দখেছেি মাথায় হাতবুলয়িে দয়ো,নজিরে আঙ্গুল মুড়য়িে কড়-কড় শব্দ করে মাথা বানয়িে দয়ো,ঘাড়,েপঠিে চপেে চপেে এতক্ষনরে অত্যাচাররে যন্ত্রনা ভুলয়িে বদিায় করা হলো। কন্তিু আমার ক্ষত্রেে তমেনটি হলো না।কাফনরে কাপড়টি সরয়ি,েঝাড়া দয়িে সখোন থকেে আমার অস্তত্বিকইে বদিায় করা হলো।সখোন থকেে দাঁড়য়িইে ৬০ টাকা আক্কলে সলোমী দয়িে বরে হয়ে আসলাম,আর আমার ফলেে আসা চুলগুলোকে বললাম আবার হয়তেো দখো হব,েতবে মাথায় নয় পায়রে জুতুতইে।সলেুনে অন্যদরে যন্ত্রনা ভুলয়িে দয়ো হয় নানা কসরতে কন্তিু আমারটি দয়েন।িতাই কাগজে লখিার ইচ্ছা হলো,কাউকইে কষ্ট দয়ো কংিবা ছোট করার জন্য নয়।
লখেক



>