কালীগঙ্গা নদী এখন ইজারাদারদের লোলুপ দৃষ্টির বালু মহল


কালীগঙ্গা নদী এখন ইজারাদারদের লোলুপ দৃষ্টির বালু মহল


 

 

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি
এক সময়ের খড়স্রোতা ।অপরিকল্পিত বাধ, ব্রীজ নির্মান এবং নদী খনন না করায় জেলার অন্য নদীর মতো কালীগঙ্গাও হারাতে বসেছে তার অস্থিত্ব। আর নদী মরে যাওয়ায় এর বিরূপ প্রভাব পরেছে কৃষি, মৎস্যসহ প্রনীবৈচিত্রে।কালীগঙ্গা নদীর তথ্য ও ছবি নিয়ে  আমাদের মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি গাজী ওয়াজেদ আলমের পাঠানো দেখুন একটি ডেক্স রিপোর্টঃ

১ হাজার ৩ শত ৭৮ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের মানিকগঞ্জ জেলা। পদ্মা-যমুনা- ধলেশ্বরী ও কালিগঙ্গা  এই জেলায় প্রধান নদী। এক সময় সারা বছরই নদী গুলোতে লঞ্চসহ বড় বড় নৌকাযান চলাচল করত। যমুনা সেতু নির্মান কালে এ নদী গুলোর মুখে প্রবাহ পরিবর্তন করায় বর্ষায় পলী পরে এই নদী গুলো তার নাব্যতা হারিয়ে ফেলে।নদী গুলোর পানি ধারন ক্ষমতা না থাকায় বর্ষায় প্লাবিত হয়  তীরবর্তী অঞ্চল আর শুষ্ক মৌশুমে দেখা যায় ধূধূ বালুচর।আর এর প্রভাব পরে জেলার কৃষিসহ প্রানী বৈচিত্রে।হারিয়ে যায় আমন, আউসধানসহ নদীকেন্দ্রিক জীবনযাত্রা।

এক সময়ের কালীগঙ্গা এখন ধূধু বালু চর, প্রয়োজন নদী খননের
ভক্সপপঃকালীগঙ্গা নদী তীরবর্তী মানুষ ৫ জন
সিংকঃ মানিকগঞ্জের নদী গুলো খনন করে তার নাব্যতা ফিরিয়ে আনা দরকার
এ্যাডঃগোলাম মহিউদ্দিন
প্রশাসক , জেলা পরিষদ, মানিকগঞ্জ
আগামী ১৮ জানুয়ারী প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা আসবেন মানিকগঞ্জে।ঐ দিন তিনি পদ্মা নদীর ক্যাপিট্যাল ড্রেজিং উদ্বোধন করবেন।পদ্মা নদীর পাশাপাশি মানিকগঞ্জে অন্যান্য নদীও এই ড্রেজিংএর আওতায় আনবেন এমনটি প্রত্যাশা করে এলাকাবাসী।



>